Musur Rannaghor- 370 টাকা দিয়ে শুরু করেছিলেন ব্যবসা, বর্তমানে আয় হাজার হাজার টাকা! মুনমুনদির কাহিনী শুনে হবেন অবাক

Musur Rannaghor- নারী দিবসের প্রাক্কালে একজন নারীর সামান্য থেকে অসামান্য হয়ে ওঠার লড়াই তুলে ধরবো আমরা আজকের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে। জীবন একটা যুদ্ধ ক্ষেত্র, যেখানে প্রতিটা মুহূর্ত বেঁচে থাকার জন্য প্রত্যেককে লড়াই করে যেতে হয়। লড়াই থেমে যাওয়া মানেই মৃত্যু গ্রাস করে আমাদের। জীবনে মৃত্যু অনিবার্য হলেও বেঁচে থাকার জন্য লড়াই করা ছাড়া দ্বিতীয় কোন অপশন নেই, তেমনই এক লড়াকু দিদির কাহিনী জানবো আমরা যার নাম মুনমুন। সম্পূর্ণ নাম মুনমুন দে রাউত (Munmun Dey)।

Musur Rannaghor

Musur Rannaghor-এর Munmun Dey-এর জীবন কাহিনী

বাড়ি পূর্ব বর্ধমান জেলার বর্ধমান শহরে। কোভিড অতিমারির সময় মুনমুনদি ও তার স্বামীর চাকরি চলে যায়। বাড়িতে ছোট বাচ্চা এবং সংসারের খরচ চালানোর দায়ে শুরু করেন হোম ডেলিভারির ব্যবসা, কারণ মুনমুনদির হাতের রান্না হার মানাবে যে কোন রেস্তোরাঁর রান্নাকে। দোকানের নাম দেন মুসুর রান্নাঘর (Musur Rannaghor)। প্রথম দিনেই তাঁর আয় হয় ৩৭০ টাকা। প্রথম দিনে তিনি ২২ জনের খাবার ডেলিভারি করেছিলেন যার মধ্যে ছিলেন দুজন কোভিড আক্রান্ত ব্যাক্তি। ধীরে ধীরে রাস্তার ধারে একটি ছোট্ট খাবারের দোকান করেন তিনি। ধীরে ধীরে ভীড়ও জমতে থাকে বেশ।

আরও পড়ুন : Aadhaar Deactivate – একটি ভুলেই নিষ্ক্রিয় হতে পারে আপনার আধার কার্ড! কখনোই করবেন না এই কাজ

স্বল্প টাকায় এমন পেট ভরা খাবার কে না চাইবে, তাই দোকান খোলার আগে থেকেই শুরু হয়ে যায় দোকানের সামনে লম্বা লাইন। উন্নত মানের খাবারের জন্যই তাঁর নাম সোশ্যাল মিডিয়ার (Social Media) মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। বর্তমানে মুনমুনদি এবং তাঁর স্বামী দুজনে মিলেই মুসুর রান্নাঘর (Musur Rannaghor) নামক হোটেলটি চালান। অনেক কঠিন পরিস্থিতি সামাল দিয়ে আজকে তাঁরা এই জায়গায় এসে দাঁড়াতে পেরেছেন। কী কী রয়েছে তাদের হোটেলের খাবারের মেনুতে? চলুন দেখে নেওয়া যাক। মুনমুন দির ফুড স্টলে (Munmun Dir Vater Hotel) পাওয়া যায় বাসন্তী পোলাও থেকে শুরু করে মটন কষা, ফ্রায়েড রাইস, চিকেন, খাসির মাংসের ঘুগনি, রুটি, চিলি চিকেন প্রভৃতি।

আরও পড়ুন : PM Mudra Yojana- ব্যবসার জন্য নেই পুঁজি? চিন্তার দিন শেষ! কেন্দ্রীয় সরকার দেবে 10 লক্ষ টাকার লোন, জানুন কিভাবে পাবেন

ফ্রায়েড রাইস কিংবা বাসন্তী পোলাওের সাথে চিকেনের আইটেম নিলে খরচ হবে মাত্র ৫০ টাকা। মটন থালি নিলে দাম পড়বে ১০০ টাকা। সাথে পাবেন দু পিস বড় মাপের চিকেন অথবা মটন পিস। বর্তমানে তাঁর হেঁসেলে মহারাজা থালিও পাওয়া যাচ্ছে, যার চাহিদাও বেশ। জীবনে কঠোর সংগ্রাম করে এগিয়ে চলেছেন আমাদের সকলের জনপ্রিয় মুনমুন দিদি (Munmun Di)। তাই আগামী দিন তাঁকে দেখে যাতে আরো সকলে অনুপ্রাণিত হয় তার জন্য তিনি সকলের উদ্দেশ্যে বলেন অসম্ভব মনের জোর এবং অদম্য জেদ নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। তবেই সাফল্য এসে জীবনে ধরা দেবে।

Leave a Comment